১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বর নিহতদের স্মরণে লক্ষ্মীপুরের বিভিন্ন স্থানে ’উপকূল দিবস’ পালিত

বিএম সাগর লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: ১৯৭০ সালের প্রলয়ঙ্করী ঘুর্ণিঝড়ে নিহতদের স্মরণ ১২ নভেম্বকে উপকূল দিবস করার দাবিতে লক্ষ্মীপুরের ৪ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে তৃতীয়বারের ন্যায় পালিত হয়েছে উপকূল দিবস। দিবসটিকে রাষ্ট্রীয় ভাবে পালনের দাবিতে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ, কমলনগর, রায়পুর, রামগতি উপজেলায় র‌্যালি, আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করে স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠন। মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) সকালে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজে র‌্যালী ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মাইন উদ্দিন পাঠান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. শহীদ উদ্দিন। আলোকযাত্রা কোস্টাল ইয়ুথ নেটওয়ার্ক-লক্ষ্মীপুর টিমের আয়োজনে কর্মসূচির শুরুতে কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কলেজের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নিয়ে র‌্যালীটি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালী শেষে কলেজে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দুপুরে কমলনগর উপজেলার হাজিরহাটে কমলনগর প্রেস ক্লাব র‌্যালী শেষে আলোচনা সভার আয়োজন করে। প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাজ্জাদুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ওমর ফারুক সাগর, ইসলামী ব্যাংক হাজিরহাট শাখার ব্যাবস্থাপক মো. সানা উল্লাহ, হাজিরহাট ইউপি চেয়ারম্যান মো. নিজাম উদ্দিন, চাইল্ড কেয়ার স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ নুরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ফজলুল হক সবুজ, যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ইয়াছিন আরাফাত রাজু, কমলনগর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. ওয়াজি উল্যাহ জুয়েল, সাংবাদিক সানা উল্লাহ সানু, আমজাদ হোসেন আমু ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হোসেন লোটাসসহ প্রমুখ। রায়পুর থানার সামনে উপজেলা সম্মিলিত সেচ্ছাসেবী পরিবার ১২ নভেম্বর কে উপকূল দিবস হিসেবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে মানববন্ধন করে। এতে উপস্থিত ছিলেন রায়পুর উপজেলার সম্মিলিত সেচ্ছাসেবী পরিবারের আহবায়ক তুহিন চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক আলিম উল্লাহ পিন্টু, সদস্য সচিব ওয়াহিদুর রহমান মুরাদ, সবুজ বাংলাদেশের আহমেদ মিরন রাজু, সঞ্জয়, মারুফ বিন শরিফ, ইয়েস ক্লাবের কিবরিয়া তুষার, ব্লাড ক্লাবের মীর মাসুদ, ফিরোজ আলম, নাসির আল ইমরান, সিরাজ শাহরিয়ার, গার্লস স্কুলের শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থী। এছাড়া উপজেলার রায়পুর এলএম মডেল পাইলট স্কুলেও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় এতে শিক্ষার্থীদের সাথে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম বাঙ্গালীসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে রামগতি আছিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও রামগতির শারদাঞ্জলি ফোরাম যৌথভাবে এ দিবসের দাবিতে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করে। সভায় বক্তব্য রাখেন আছিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রাজ্জাক, রামগতি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ কামান শীষ মজুমদার, প্রভাষক রনজিৎ দাস, লিংকনসাহা ও সাংবাদিক মিসুসাহা প্রমুখ এসময় বক্তারা ১২ নভেম্বর নিহতের স্মরণে এ দিনকে সরকারিভাবে উপকূল দিবস ঘোষণার দাবি জানান প্রসঙ্গত; ১৯৭০ সালে ১২ নভেম্বর লক্ষ্মীপুরসহ উপকূলের ১৬ জেলায় প্রলয়ঙ্করী ঘুর্ণিঝড়ে সরকারি ভাবে ৫ লাখ, তবে বেসরকারি হিসেবে ১০ লাখ মানুষ মারা যায়। লক্ষ্মীপুরে প্রাণহানী ঘটে ৫০ হাজার মানুষের। ২০১৭ সালের ১৮মার্চ জাতিসংঘের বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা এ দিনকে বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাণহানির ঘটনা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।