সংবাদপত্র শিল্প টিকিয়ে রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

বিশেষ প্রতিনিধিঃ সংবাদপত্র শিল্পের চলমান সমস্যা ও সমাধান নিয়ে বাংলাদেশ সংবাদপত্র শিল্প পরিষদের উদ্যোগে শনিবার (২৫ মে) আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পরিষদের সভাপতি ও ডেইলী ইন্ডাস্ট্রি’র সম্পাদক ড. এনায়েত করিমের সভাপতিত্বে কার্যবিরণী পাঠ করেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দৈনিক শেষ কথার সম্পাদক ইউনুস সোহাগ।

সভায় উপস্থিত সম্পাদক ও প্রকাশকদের উদ্দেশ্যে তিনি সংবাদপত্র শিল্পের বিরাজমান সমস্যা ও সমাধান নিয়ে ১৪ দফা দাবি উপস্থাপন করেন। দাবিগুলোর ব্যাপারে উপস্থিত সদস্যরা মতামত ব্যক্ত করেন।

এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা দৈনিক স্বপ্ন প্রতিদিন প্রকাশনা গ্রুপ চেয়ারম্যান মো. মমিনুর রশীদ মামুন, দৈনিক ভোরের ডাক সম্পাদক কে এম বেলায়েত হোসেন, দৈনিক পাঞ্জেরী সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম তালুকদার, দৈনিক আলোর জগত সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক তালুকদার, ডেইলি বিজনেস ফাইল সম্পাদক অভি চৌধুরী, দৈনিক তরুণ কণ্ঠ প্রকাশক রফিকুল ইসলাম শান্ত, দৈনিক মুক্ত তথ্য সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম এ মজিদ, দৈনিক মাতৃভূমির খবর সম্পাদক মো. রেজাউল করিম, দৈনিক সময়ের চিত্র সম্পাদক এ আর এম মামুন, দৈনিক সংবাদ প্রতিক্ষণ সম্পাদক মো. আব্দুল আউয়াল, দৈনিক বিশ্ব মানচিত্র সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. রাসেদ উদ্দিন, দৈনিক বন্ধুজন সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি আসিফ হাসান নবী, দৈনিক ব্যাংক বীমা অর্থনীতি সম্পাদক মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান, দৈনিক আমাদের জাগরণ সম্পাদক নূরুল আজিজ চৌধুরী, দৈনিক নববাণী সম্পাদক এ এম এম সলিমউল্লাহ সরকার, দৈনিক ভোরের সময় প্রধান সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান, দৈনিক অগ্নিশিখা সম্পাদক মোর্শেদ আলম, দৈনিক আজকের প্রভাত সম্পাদক নেজামুল হক, ডেইলি ইভিনিং নিউজ সম্পাদক এবিএম সেলিম আহমেদ, দৈনিক আলোর বার্তা সম্পাদক অধ্যাপক রফিকউল্লাহ শিকদার ও দি ডেইলি চ্যালেঞ্জ সম্পাদক নাসির আল মামুন প্রমুখ।

উত্থাপিত দাবিগুলো হচ্ছে : ১। ডিএফপিসহ সকল সরকারি সংস্থার কাছে বকেয়া বিজ্ঞাপন বিল আগামী জুনের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে, ২। সরকারী বিজ্ঞাপনের সুষম বন্টন নীতিমালা প্রণয়ন ২। প্রতিটি বিজ্ঞাপণ কমপক্ষে ২টি ইংরেজি ও ৪টি বাংলা পত্রিকায় প্রদান ৩। বিজ্ঞাপন বিলের উপর অগ্রিম আয়কর এবং সার্ভিস চার্জ বাতিল ৪। ইংরেজী ও বাংলা পত্রিকার সরকারি বিজ্ঞাপনের মূল্য বৈষম্য দুর ৫। নিবন্ধিত পত্রিকার অন-লাইন পোর্টালে সরকারি বিজ্ঞাপনের মূল্য নির্ধারণ করে প্রচারের ব্যবস্থা ৬। সরকারি বিজ্ঞাপনের মূল্য বাজার ভিত্তিক (মূল্যস্ফীতির ভিত্তিতে) বৃদ্ধি ৭। সংবাদপত্র শিল্পের জন্য স্বল্প সুদে ঋণের ব্যবস্থা ৮।

সাংবাদিক কর্মচারীদের আবাসন ব্যবস্থা ৯। সংবাদপত্র শিল্পের জন্য আসন্ন বাজেটে ৫ হাজার কোটি টাকার বিশেষ বরাদ্দ ১০। প্রকাশিত বিজ্ঞাপন বিল সর্বোচ্চ তিন মাসের মধ্যে পরিশোধ ১১। সংবাদপত্র কর্মীদের জন্য একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মান ১২। সংবাদকর্মীদের জন্য বিশেষ পেনশন স্কীম চালু ১৩। ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টসহ সকল কালা-কানুন বাতিল ১৪। সকল সম্পাদককে ভিআইপি মর্যাদা প্রদানে দাবি জানানো হয়।

সভায় সংবাদপত্র শিল্প টিকিয়ে রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।