শপথ গ্রহণ: ঐক্যফ্রন্টে অনৈক্য

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট ২৮৮টি আসনে জয়লাভ করেছে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ একাই জিতেছে ২৫৭টি আসনে। হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টি ২২টি আসন পেলেও মাত্র ৭টি আসনে জয় পেয়েছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট। মাত্র ৫টি আসনে জয় পেয়েছে বিএনপির নেতারা। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত সাংসদদের শপথ। শপথ গ্রহণের বিষয়ে দলীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছেন বিএনপির নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে না যাওয়ার ইঙ্গিত এ ৫ নেতা দিলেও ঐক্যফ্রন্টের শরীক গণফোরামের ২ নির্বাচিত সংসদ সদস্য শপথ নিতে চান বলেই জানিয়েছেন।

বগুড়া-৬ সংসদীয় আসনে খালেদা জিয়ার বিকল্প প্রার্থী মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। বগুড়া-৪ আসনে জয়ী হয়েছেন মোশাররফ হোসেন। আইনী জটিলতায় বগুড়া-৭ আসনে বিএনপি’র মনোনীত প্রার্থী সকলের প্রার্থিতা বাতিল হওয়ায় ভোটের দুইদিন আগে স্বতন্ত্রপ্রার্থী রেজাউল করিম বাবলুকে সমর্থন দেয় দলটি। মহাজোটের শরীক জাতীয় পার্টির প্রার্থীর বিরুদ্ধে ট্রাক প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন তিনি। অপরদিকে, অনিয়ম ও দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলা এবং ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বাতিলের দাবি জানিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এমন অবস্থায় সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণ করবেন কিনা সে বিষয়ে দলের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে জানিয়েছেন বিএনপি থেকে নব নির্বাচিতরা।

বগুড়া-৪ আসনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত মোশাররফ হোসেন বলেন, আমি দল থেকে এখনও কোন সিদ্ধান্ত পাইনি। দল থেকে আমাকে যে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে আমি তা মেনেই সামনে কাজ করে যাবো। তবে শেষ মুহূর্তে বিএনপির সমর্থন পাওয়া বগুড়া-৭ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয়ী রেজাউল করিম বাবলুর কোন মন্তব্য জানা যায়নি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে নির্বাচিত বিএনপির সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হারুনুর রশিদও দলের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছেন। দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমানও।

অন্যদিকে নির্বাচন নিয়ে বিএনপি কারচুপির অভিযোগ তুললেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল থেকে জয়ী প্রার্থীরা বলছেন সম্পূর্ণ ভিন্ন কথা। শপথ নিয়ে সংসদে যাওয়ার ইঙ্গিতই দিয়েছেন তারা। আতঙ্ক থাকলেও দেশের অন্যান্য জায়গার তুলনায় সিলেটে ভালো নির্বাচন হয়েছে বলে মনে করেন সিলেট-২ আসনে ঐক্যফ্রন্টের শরীক গণফোরামের নির্বাচিত প্রার্থী মোকাব্বির খান। তিনি বলেন, দেশের এই পরিস্থিতিতে একটি সহনশীল নির্বাচন হয়েছে।

মৌলভীবাজার-২ থেকে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ নির্বাচিত হয়েই এখন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে চান। এতে তার সংসদের অংশগ্রহনের ইঙ্গিতই পাওয়া য়ায়। তিনি বলেন, জাতীয় রাজনীতিতে এখন যে অচলাবস্থা রয়েছে। জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমেই এই অবস্থার সমাধান করা সম্ভব। আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ এবার ঐক্যফ্রন্টের হয়ে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছেন।