রাসেল-সাকিবের জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় ঢাকা

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

এই আমার দেশ ডেস্ক : সেরা চারে থাকা নিশ্চিত হয়েছে সবশেষ ম্যাচ জিতে। এখন সামনের সব ম্যাচই হতে পারে শেষ ম্যাচ। ঢাকা ডায়নামাইটসের সামনে তাই কঠিন চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জ জয়ে ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ তাকিয়ে দলের বড় দুই তারকা আন্দ্রে রাসেল ও সাকিব আল হাসানের দিকে।

এবারের বিপিএলে শুরুর অনেকটা পথ ঢাকাই ছিল সবার আগে। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় তারা পিছিয়ে পড়ে অনেকটা। প্রাথমিক পর্বের শেষ ম্যাচটি জয়ের পরই কেবল নিশ্চিত হয়েছে শীর্ষ চারে থাকা।

টুর্নামেন্টে ঢাকার পথচলায় সাকিব ও রাসেল কখনও বেশ ভালো করেছেন, কখনও ছিলেন বিবর্ণ। বল হাতে সাকিব ছিলেন দুর্দান্ত, ১২ ম্যাচে উইকেট নিয়েছেন ২১টি। তবে ব্যাটিংয়ে নিজের সেরাটি দেখাতে পারেননি এখনও। ১২ ইনিংসে ২৭৫ রান করেছেন ২৫ গড় ও ১১৪.৫৮ স্ট্রাইক রেটে। রাসেল ২৫৫ রান করেছেন ৩১.৮৭ গড় ও ১৫০.৮৮ স্ট্রাইক রেটে। উইকেট ১২ ম্যাচে ১২টি।

ফাইনালের পথে টিকে থাকার লড়াইয়ে এই দুজনের জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় আছেন ঢাকার কোচ। সোমবার এলিমিনেটরে চিটাগং ভাইকিংসের মুখোমুখি হবে ঢাকা, প্রাথমিক পর্বে যাদের কাছে দুবারই হেরেছে তারা। এবার হারা মানে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাওয়া। তৃতীয় দেখায় ভিন্ন কিছু করতে খালেদ মাহমুদের ভরসা সাকিব ও রাসেল। আগের দুই ম্যাচে দলে যোগ হওয়া উপুল থারাঙ্গার ওপরও তার আস্থা বেশ।

“এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ম্যাচ। জিতলে থাকব, হেরে গেলে বিদায়। আমরা এর আগে চিটাগংয়ের বিপক্ষে হেরেছিলাম। তবে কালকে একটি নতুন দিন। আমরা খুব কাছাকাছি গিয়ে তাদের কাছে হেরেছি। আমি বিশ্বাস করি যে, বিদেশি ক্রিকেটারের মধ্যে উপুল এসেছে, তাতে নতুন একটি ফরমেশন তৈরি হয়েছে দলের। আশা করি, যে বিদেশি ক্রিকেটাররা এখনও সেভাবে পারফর্ম করেনি, হয়তো এই সময়ের জন্যই করেনি। এখন হয়তো জ্বলে উঠবে।”

“আন্দ্রে রাসেল এমন একজন ক্রিকেটার, যে কিনা একাই ম্যাচ জিতিয়ে দেয়ার সামর্থ্য রাখে। এছাড়া আমরা সাকিবের কাছ থেকেও রান পাইনি কয়েকটি ম্যাচে। সাকিব তো বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডারদের মধ্যে একজন। আশা করি অধিনায়ক সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিবে।” বিডিনিউজ