বৃষ্টি শেষে ঝড়ের কবলে মুশফিকরা

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

এই আমার দেশ ডেস্ক : বিপিএলে আজ দিনটা শুরু হলো বৃষ্টি দিয়ে। টসের একটু আগে বৃষ্টি নামায় খেলা শুরু হতে দেরি হয়েছিল। খেলা শুরু হতেই আবার বৃষ্টি বাগড়া। ১ ওভার শেষ হতেই সবাই ছুটলেন ডাগ আউটে। তবে ম্যাচ বাতিলের কোনো সম্ভাবনা জাগেনি এতে। কিছুক্ষণ পরই খেলা শুরু হয়েছে। কিন্তু বৃষ্টি থামলেও ঝড় বয়ে গেছে চিটাগং ভাইকিংস ইনিংসে। ১ ওভার কমে আসা ইনিংসে ৮ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১১৬ রান তুলতে পেরেছে স্বাগতিক দল। বিপিএলের শীর্ষস্থান বুঝে নিতে মাত্র ১১৭ রান করলেই চলবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের।

বৃষ্টি বিরতি সেরে মাঠে নামতে না নামতেই ধাক্কা খেয়েছে চিটাগং। তৃতীয় বলে শূন্য রানে ফিরেছেন শাদমান ইসলাম। ঠিক তিন বলে ওই শূন্য রান করেই আউট হয়েছেন ইয়াসির। শাদমানের ক্ষেত্রে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণ করে রিভিউ নিয়ে সফল হয়েছেন বোলার সাইফউদ্দীন। আর ইয়াসিরের ক্ষেত্রে তেমন কিছু করতে হয়নি। ফর্মে থাকা এই ব্যাটসম্যান বল বুঝে উঠতে না পেরে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন।

অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও তাদের পথ ধরলেন। ওয়াহাব রিয়াজকে স্লিপের পাশ দিয়ে পাঠাতে গিয়ে উইকেটরক্ষকের কাছে ধরা পড়লেন। পঞ্চম ওভারে ১৭ রানে ৩ উইকেট হারানো দলটি এর পর মাঠে নামাল নজীবুল্লাহ জাদরানকে। আক্রমণকেই সেরা রক্ষণ মেনে নামা এই ব্যাটসম্যান গোটা দুই ছক্কাও মারলেন। কিন্তু দলকে ৩৬ রানে রেখে জাদরানও (১৩) ফিরলেন সপ্তম ওভারে। অন্যপাশে অসহায় দর্শক হয়ে দাঁড়িয়ে মোহাম্মদ শেহজাদ।

তাঁকে অমন অসহায় অবস্থায় রেখেই বাজেভাবে আউট হয়ে ফিরেছেন ডেলপোর্ট আর সিকান্দার রাজা। ১২ ওভার শেষে ভাইকিংসের স্কোরবোর্ডও তাই অমন ভগ্নদশা (৬৫/৬) দেখাচ্ছিল। ১৩তম ওভারের শেষ বলে স্কোরবোর্ডকে একদম রুগ্‌ণ বানিয়ে দিলেন মোসাদ্দেক (৭০/৭)। ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে গেলেন এক প্রান্ত ধরে রাখা শেহজাদ। নিজের নামের সঙ্গে বেমানান এক ইনিংস খেলেই ফিরতে হলো আফগান ওপেনারকে। ৩৫ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় মাত্র ৩৩ রান করেছেন শেহজাদ।

ইনিংসের বাকি সময়টা সে ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন মোসাদ্দেক হোসেন। ২৪ বলে ৩ চার ও ৩ ছক্কায় ৪৩ রান তুলেছেন জাতীয় দল থেকে ছিটকে পড়া এই ব্যাটসম্যান। শেষ ৬ ওভারে ৪৬ রান তুলে স্কোরকে ভদ্রস্থ রূপ দিয়েছেন মোসাদ্দেক।