‘বিটিছোল লিয়া ঢলাঢলি করে হিরো তৈরি হচে’

ডেস্ক রিপোর্ট : স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে শ্বশুরের দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে রয়েছেন আলোচিত মডেল-অভিনেতা আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম। এদিকে হিরো আলমের গ্রেপ্তারের খবরে তার বাড়ি বগুড়া সদরের এরুলিয়া পলিবাড়ী গ্রামে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এলাকার বয়স্ক এক নারী মন্তব্য করেন, মেয়েদের নিয়ে ঢলাঢলি করে হিরো তৈরি হয়েছেন হিরো আলম।

বউকে মারধরের ঘটনার মামলায় বুধবার রাতে হিরো আলম গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই তার উপযুক্ত বিচারের পাশাপাশি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন গ্রামবাসী।

গ্রামের ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধা হালিমা খাতুন বলেন, ‘হামাকেরে গ্রামত একটা শয়তান তৈরি হচে। বিটিছোল লিয়া লাচালাচি আর ঢলাঢলি করে হিরো তৈরি হচে। আবার বউওক মারধোর করে। ছোট তিনডা ছোলের কতাও ভাবল না। ইংকা শয়তানের বিচার হওয়া লাগবি।’

আবদুর রউফ পাটোয়ারি নামের একজন ব্যবসায়ী বলেন, ‘একটা মানুষ কতটা নিচে নামতে পারে তা হিরো আলমকে না দেখলে বোঝা যাবে না। কিছু টাকা হইছে, তারই গরম এগুলা। গ্রামে অনেকেই জানে তার চরিত্রের দোষের কথা। এখনতো তার বউই সব ফাঁস করে দিছে।’

এরুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ মণ্ডল বলেন, ‘হিরো আলমের বাড়ির লোকজন আমার কাছে এসেছিল পুলিশের কাছ থেকে তাকে ছাড়িয়ে নিতে তদবির করার জন্য। আমি পারব না বলে জানিয়ে দিয়েছি। একটা বদমাইশ ছেলের জন্য গ্রামের দুর্নাম হচ্ছে। ওর উপযুক্ত শাস্তি হওয়া উচিৎ।’

এদিকে, মারধরের পর বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন হিরো আলমের স্ত্রী সাদিয়া বেগম সুমি বুধবার জানান, দুই মাস পর গত সোমবার রাতে হিরো আলম বগুড়া শহরতলীর এরুলিয়া গ্রামে তার বাড়িতে আসেন। বাসায় ফেরার পর থেকে বিছানায় শুয়ে একটানা তিন ঘণ্টা মুঠোফোনে ঢাকার এক নারীর সঙ্গে কথা বলেন হিরো আলম। এর প্রতিবাদ করলে সোমবার রাতেই তাকে বেদম মারধর করেন হিরো আলম।

সুমি অভিযোগ করেন, হিরো আলম ঢাকায় দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন। এ কারণে বগুড়ায় থাকা স্ত্রী-সন্তানের কোনো খবর রাখেন না এবং সংসার খরচ দেন না। এর প্রতিবাদ করায় এর আগেও তাকে শারীরিক নির্যাতন করেছেন হিরো আলম।

এ ঘটনার পরই বুধবার দুপুরে হিরো আলমের শ্বশুর সাইফুল ইসলাম খোকন যৌতুক ও নির্যাতনের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় মামলা করেন।

উল্লেখ্য, বগুড়া সদরের এরুলিয়া এলাকার ক্যাবল-সংযোগ ব্যবসায়ী আশরাফুল হোসেন আলম কয়েক বছর আগে বিভিন্ন মিউজিক ভিডিওতে অভিনয়ের মাধ্যমে ইউটিউবে ‘হিরো আলম’ নামে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান। গত সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু- নন্দীগ্রাম) আসনে সংসদ সদস্য প্রার্থী হয়ে সারা দেশে আলোচনায় আসেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত ওই নির্বাচনে ৬৩৮ ভোট পেয়ে জামানত হারান হিরো আলম। ২০০৮ সালে সুমী বেগমকে বিয়ে করেন তিনি। তাদের সংসারে দুই কন্যা ও এক পুত্র সন্তান রয়েছে।