বাংলাদেশ-মিয়ানমার ঘুমধুম সীমান্তে দুই বিজিিবি সদস্য গুলি গুলিবিদ্ধ

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু বান্দরবান থেকেঃ বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমে বাংলাদে-মিয়ানমার সীমান্তে বিজিবি সঙ্গে চোরাকারবারী চক্রের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এসময় ২ বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সোমবার রাতে সাড়ে আটটার দিকা এ ঘটনা ঘটে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের মিয়ানমার সীমান্তের ৩৬ নম্বর সীমান্ত পিলারের রাস্তার মাথা নামক এলাকায় বিজিবি সদ্যদের একটি টহল দল পৌছালে চোরাকারবারী চক্রের সদস্যরা বিজিবি টহল টিমের উপর গুলি ছূড়ে। বাইশফাড়ি

এসময় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরাও চোরাকারবারী চক্রের উপরে গুলি বর্ষণ করে। দু’পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েক রাউন্ড গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এসময় চোরাকারবারী চক্রের গুলিতে ২ জন বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছে। আহতরা হলেন- বিজিবি ৩৪ ব্যাটেলিয়ানের নিয়ন্ত্রিত বাইশফাড়ি বিজিবি ক্যাম্পের সিপাহী মৃত্যঞ্জয় এবং সিপাহী ফরিদ উদ্দিন। দুইজন বিজিবি সদস্যের বাম পায়ের হাটুর নিচে গুলি লেগেছে। খবর পেয়ে বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে রামু সিএমএইচ হাসপাতালে ভর্তি করে। তবে এই ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে সীমান্তে বিজিবি-চোরাকারবারী চক্রের গোলাগুলির ঘটনায় সীমান্ত অঞ্চলের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তবে কারা বিজিবি সদস্যদের উপরে গলি বর্ষণ করেছে বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। স্থানীয়দের ধারনা, মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী দল আল ইয়াকিন এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বিজিবি কক্সবাজার রিজিয়ন কমান্ডার মো: সাজেদুল রহমান এবং বিজিবির কক্সবাজার সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মন্জুরুল হাসান খান বলেন, সীমান্তে দুস্কৃতকারীদের গুলিতে আহত ২ বিজিবি সদস্য আহত হয়েছে। এদের মধ্যে সিপাহী ফরিদ উদ্দিন’কে চট্টগ্রামে নেয়া হয়েছে। মৃত্যঞ্জয়’কে রামু সিএমএইচ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।