জাতীয় সংসদ নির্বাচন: এবার সাংবাদিকদের ওপর বিধিনিষেধ ইসির

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিকদের মোটরসাইকেল ব্যবহারেও নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে এবার সাংবাদিকদের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করে নীতিমালা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

এতে সাংবাদিকরা মোটরসাইকেল ব্যবহার করে সংবাদ সংগ্রহ করতে পারবেন না। সাংবাদিকদের মোটরসাইকেলের জন্য কোনো পাস (স্টিকার) ইস্যু করা হবে না। একই সঙ্গে একাধিক মিডিয়ার সাংবাদিক একই ভোটকক্ষে প্রবেশ করার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। শনিবার এ নীতিমালা জারি করে কমিশন।

যদিও ইসির একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, বিগত নির্বাচনগুলোতে সাংবাদিকরা নির্বাচন কমিশন সচিবালয় ও রিটার্নিং কর্মকর্তার ইস্যু করা পাস ব্যবহার করে মোটরসাইকেল চালাতে পারতেন। এবার নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করা হল। এতে ভোটকক্ষ থেকে সরাসরি সম্প্রচার বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও সরাসরি প্রচার করার ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হল।

জানা গেছে, এ নীতিমালায় সাংবাদিকদের এক ডজনের বেশি দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, যা অমান্য করলে বা ব্যত্যয় ঘটলে সংশ্লিষ্ট সংবাদ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আইন, বিধি ও কোড অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের কথাও বলা হয়েছে নীতিমালায়। এ নীতিমালা সব রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, রিটার্নিং কর্মকর্তারা তাদের সংশ্লিষ্ট এলাকার কার্ড দেবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাকে সংশ্লিষ্ট উপজেলার সাংবাদিকদের কার্ড দেয়ার ক্ষমতা দিতে পারবেন। এছাড়া ঢাকা থেকে যেসব সাংবাদিক দেশের বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনী সংবাদ সংগ্রহ করতে যাবেন, তাদের কার্ড নির্বাচন কমিশন থেকে দেয়া হবে। সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকরা নির্বাচন কমিশন অনুমোদিত এবং অনুমোদন সূচক স্টিকারযুক্ত যানবাহন ব্যবহার করতে পারবেন। মোটরসাইকেল ব্যবহার করার জন্য কোনো স্টিকার ইস্যু করা হবে না।

আরও জানা গেছে, এবারই প্রথম সাংবাদিকদের মোটরসাইকেল চলাচলের অনুমোদন (স্টিকার) দেয়া হল না। তবে অন্য যানবাহন ব্যবহার করলে স্টিকার দেয়া হবে। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন ভোটের সময় মোটরসাইকেল চালনার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এক্ষেত্রে ২৯ ডিসেম্বর মধ্যরাত থেকে ২ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ক্ষেত্র বিশেষ আরও অধিককাল মোটরসাইকেল বা অনুরূপ যান চলাচল বন্ধ থাকবে।

নীতিমালায় আরও বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে প্রদত্ত বৈধ কার্ডধারী সাংবাদিক সরাসরি ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন। একই সঙ্গে একাধিক মিডিয়ার সাংবাদিক একই ভোটকক্ষে প্রবেশ করতে পারবেন না। ভোটকক্ষের ভেতর থেকে কোনোভাবেই সরাসরি সম্প্রচার করা যাবে না। ভোট কেন্দ্রের ভেতর থেকে সরাসরি সম্প্রচার করতে হলে ভোটকক্ষ থেকে নিরাপদ দূরত্বে গিয়ে তা করতে হবে। সাংবাদিকরা ভোট গণনা কক্ষে ভোট গণনা দেখতে পারবেন, তবে সরাসরি সম্প্রচার করতে পারবেন না। ভোটকক্ষ থেকে ফেসবুকসহ কোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরাসরি প্রচার করা যাবে না। কোনো প্রকার নির্বাচনী উপকরণ স্পর্শ বা অপসারণ করতে পারবেন না।