চুয়াডাঙ্গায় স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ

প্রতিনিধি, চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হাতিকাটা আবাসনে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত বাপ্পি (৩৫) এই আবাসনেরই বাসিন্দা। ঘটনা জানাজানি হওয়ায় পর থেকে অভিযুক্ত বাপ্পি পলাতক রয়েছে৷ এবিষয়ে স্কুলছাত্রীর পিতা বাদি হয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ রাতেই অভিযুক্ত বাপ্পিকে না পেয়ে তার স্ত্রীকে সদর থানা হেফাজতে নিয়েছে৷
এলাকাবাসী ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, আবাসনের এক নারী মাঝে মধ্যেই বাপ্পি ওই স্কুলছাত্রীকে ইশারায় ডেকে নিয়ে যেতে দেখতেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ওই স্কুলছাত্রীকে খুজে পাওয়া যাচ্ছিলনা। পরে ওই নারী কিছুক্ষণ পর দেখে বাপ্পির তার নিজ ঘর থেকে স্কুলছাত্রীকে বের করে দিচ্ছে৷ বিষয়টি স্কুলছাত্রীর পরিবারের সদস্যকে জানালে প্রাথমিকভাবে জোরপূর্বক ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে স্কুলছাত্রী।
পরে ঘটনা জানাজানি হলে ওই নারীর পরিবারকে হুমকি ধামকি দিয়ে সটকে পড়ে অভিযুক্ত বাপ্পি।
রাতেই স্কুলছাত্রীর পিতা বাদি হয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন৷ আগামীকাল স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরিক্ষা সম্পন্ন করা হবে।
এ ব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে মেয়েটি জোরপূর্বক ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে৷ স্কুলছাত্রীর পিতা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।