গোদাগাড়ীতে শত্রুতা করে ১০ বিঘা জমির ফসল নষ্ট করার অভিযোগ

রাজশাহী ব্যুরোঃরাজশাহীর গোদাগাড়ীতে শত্রুতা করে ১০ বিঘা জমির ফসল নষ্ট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার ভারতীয় সীমান্ত সংলগ্ন চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়নের দিয়াড়মানিকচক গ্রামে এই ফসল নষ্ট করার ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে রাতে গোদাগাড়ী থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী কৃষক ইসরাইল হোসেন (৫৫)। তার বাড়ি দিয়াড়মানিকচক গ্রামে। অভিযোগে তিনি একই গ্রামের আবদুল কুদ্দুস (৫০) এবং তার ছেলে জাহিদ হোসেন (৩০), মোঃ শরিফ (২৫) ও মোঃ দবির (২৭) এবং চর আষাড়িয়াদহ আমতলা গ্রামের মৃত মুসলিম উদ্দিনের ছেলে মোঃ মোস্তফা (৪০), আসাদুল ইসলাম (৩৮), আবু বক্করকে (৩০) কে দায়ি করা হয়েছে। থানা অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ইসরাইলের দখলে থাকা জমি নিজের বলে দাবি করে আসছেন আবদুল কুদ্দুস। ইসরাইল ১০ বিঘা জমির মধ্যে চার বিঘায় খেসারি ও ছয় বিঘায় কলাই চাষ করেন। জমি দখলে নিতে রোববার বিকালে অভিযুক্তরা খেসারির জমিতে ট্রাক্টর দিয়ে চাষ দেন। পরের দিন বিকালে তারা জমির কলাই কেটে ফেলেন। ঘটনার সময় প্রথম দিন ইসরাইল বিষয়টি টের পাননি। তবে পরেরদিন লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে ছুটে যান। তখন অভিযুক্তরা পালিয়ে যান।

অভিযোগকারী ইসরাইল হোসেন জানান, গতবছর তার জমিতে বসানো সেচের শ্যালো মেশিন নষ্ট করে দেন অভিযুক্তরা। শ্যালো মেশিনের পাইপে তখন ইট, পাথর ও বাঁশ ঢুকিয়ে নষ্ট করা হয়। অকেজো মেশিনটি তখন মেরামত করা যায়নি। এর ফলে প্রায় শতাধিক বিঘা জমির বোরো ধান নষ্ট হয়ে যায়। এ নিয়ে থানায় মামলা করা হয়েছিল। সেই মামলা এখনও চলমান। এ অবস্থায় আবারও তার জমির ফসল নষ্ট করলো অভিযুক্ত আবদুল কুদ্দুসের ছেলে কবিরের মোবাইলের দুটি নম্বরে ০১৭৮৬৯৫৪০ যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়। গোদাগাড়ী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এ ধরনের একটা অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত চলছে, এর সত্যতা পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।