খেলোয়াড়দের পুরুষাঙ্গ দেখে টিম নির্বাচন করেন যে মহিলা কোচ

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

এই আমার দেশ ডেস্ক : বরাবরের মতো সপ্রতিভ জবাব দিতে দক্ষ লিভারপুল কোচ জুরগেন ক্লপ। কিন্তু তাঁকেও এমন কথা বলতে শোনা যায়নি কখনও। জার্মানির পঞ্চম ডিভিশনের ক্লাব বিভি ক্লোপ্পেনবার্গ টিমের কোচ ইমকে উবেনহর্স্ট প্রথম মহিলা জার্মান কোচ হিসেবে নজির গড়েছেন ডিসেম্বর মাসে।

ইমকে উবেনহর্স্ট প্রথম মহিলা জার্মান কোচ

সুইডেনের মহিলা ফুটবল দলের ম্যানেজার পিয়া সুন্ধাগে-কেও ২০১৪ সালে কঠিন প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছিল। তবে ইমকের জবাব সব কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে।

তাঁকে কোচ করে আনার পরে প্রশ্নের ঝড় ওঠে। তিনি কোচ হয়ে আসার দিনকয়েক পরেই এক সাংবাদিকের প্রশ্ন ছিল, ‘‘আপনি ড্রেসিং রুমে প্রবেশ করলে কি ফুটবলারদের প্যান্ট পরতে বলবেন?’’ এর পরেই মোক্ষম জবাব দেন ইমকে। আর তা নিয়ে কম লেখালেখি হয়নি। সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে ব্যঙ্গ করে ইমকে বলেন, ‘‘আমি পেশাদার কোচ। পুরুষাঙ্গের মাপ দেখেই টিমে ফুটবলার বাছাই করি।”

লিঙ্গবৈষম্যমূলক প্রশ্নের সামনে ইমকে-কেই যে প্রথমবার পড়তে হয়েছে এমন নয়।
ইমকে উবেনহর্স্ট প্রথম মহিলা জার্মান কোচ -কেও ২০১৪ সালে একই প্রশ্নের সামনে পড়তে হয়েছিল। তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, একজন মহিলার পক্ষে কি পুরুষ দলকে কোচিং করানো যায়? জবাবে পিয়া বলেছিলেন, ‘‘অ্যাঞ্জেলা মার্কেল তো গোটা একটা দেশ চালনা করেন।’’