কালীগঞ্জে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর পরিবারের ওপর আ’লীগের হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বিজুর মা ও স্ত্রীর ওপর নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা হামলা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। রোববার বিকালে পৌরসভাধীন চাঁচড়া গ্রামের এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এতে মেয়র প্রার্থীর মা রাশিদা বেগম ও স্ত্রী শাহিনুর বেগমসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মোস্তাফিজুর রহমান বিজুর মা, স্ত্রী ও ভাইকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মেয়র প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বিজুর অভিযোগ, ক্ষমতাসীন দলের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আশরাফুল আলম আশরাফের সমর্থকরা এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। স্থানীয়রা জানান, এদিন বিকালে কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদের উপ-নির্বাচনে প্রার্থী সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান বিজুর মা রাশিদা বেগম ও স্ত্রী শাহিনুর বেগমসহ ১০/১২ জনের একটি দল গণসংযোগে বের হয়।

বিকাল ৩ টার দিকে তারা পৌরসভাধীন চাঁচড়া গ্রামে পৌঁছলে আওয়ামী লীগ সমর্থক একদল সশস্ত্র যুবক তাদের ওপর হামলা করে। এ সময় তারা মেয়র প্রার্থী বিজুর মা ও স্ত্রীর ওপর বেধড়ক লাঠিদিয়ে আঘাত করে। এতে বিজুর মা-স্ত্রীসহ রাহেলা বেগম, মোস্তাক আহমেদ ও রবিউল ইসলাম সহ মোট পাঁচজন আহত হন। পরে স্থানীয়দের সহযোগীতায় তাদের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. শম্পা মোদক জানান, সাবেক মেয়র মোস্তাফিজুর রহমানের মা ও স্ত্রীসহ মোস্তাকের শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে তাদের অবস্থায় আশঙ্কাজনক নয়।

কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুচ আলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

এর আগে ১৫ ফেব্রুয়ারি মোস্তাফিজুর রহমান বিজুর মোবাইল প্রতীকের এক হাজার পোস্টার পুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় কালীগঞ্জ রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রথম শ্রেণির এ পৌরসভার উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। পৌরসভার এবার মোট ভোটার ৩৮হাজার ৫শ ৮৮ জন।

গেল বছরের ২২ সেপ্টেম্বর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মকছেদ আলী বিশ্বাস হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তার মৃত্যুতে পৌর মেয়র পদ শূন্য হয়।