কানাইঘাটে সুরমার পানি বিপদসীমার ৭৩ সেন্টিমিটার উপরে


প্রবল বর্ষণে সিলেট অঞ্চলের নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। নগরীর বিভিন্ন স্থানে দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। কোন কোন স্থানে নদী উপচে শহর জনপদ প্লাবিত হচ্ছে।
শুক্রবার রাতে সীমান্তবর্তী কানাইঘাটে সুরমা ৭৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। জৈন্তাপুরের সারিঘাটে সারি নদীর পানি ৫০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রভাহিত হচ্ছে। এদিকে জৈন্তাপুরে ভারী বর্ষাণে বিভিন্ন ইউনিয়ন প্লাবিত। ফেঞ্চুগঞ্জে কুশিয়ারার পানি বাড়ছে।

সিলেট পানি উন্নয়নবোর্ড জানায়, সুরমা-কুশিয়ারা, সারি ও লোভাছড়ার পানি বিভিন্ন পয়েন্টে বাড়তে শুরু করেছে। এরমধ্যে দুটি পয়েন্টে সুরমা ও সারি বিপদসীমা অতিক্রম করেছে। আর কুশিয়ারা এখনো বিপদসীমা অতিক্রম না করলেও প্রতিটি পয়েন্টে পানি বাড়ছে।

শুক্রবার সকালে সুরমার সিলেট পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ৭ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হলেও পরবর্তী ৯ ঘণ্টায় এ পয়েন্টে পানি বেড়েছে প্রায় ৪১ সেন্টিমিটার। জকিগঞ্জের আমলসিদে সকালে কুশিয়ারা বিপদসীমার ৮৫ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হলেও পানি বাড়ছেই।

শ্যাওলায় কুশিয়ারা ১ দশমিক ২০ মিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হলেও বিকেল ৩টায় পানি ছিল ১১ দশমিক ৩০ মিটার। অর্থাৎ ৯ ঘণ্টায় মোট বেড়েছে ১০ সেন্টিমিটার। কুশিয়ারা শেরপুর পয়েন্টেও পানি বাড়ছে। এছাড়া পাহাড়ী নদী লোভাছড়ার পানিও লোভাছড়া পয়েন্টে বাড়ছে।