উপজেলা নির্বাচন: বিদ্রোহী ছোট ভাইয়ের ঘুষিতে প্রাণ গেল বড় ভাইয়ের, আহত আরও ৩৩

ডেস্ক রিপোর্ট : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রচারণায় অংশ নেয়ায় বিদ্রোহী প্রার্থী ছোট ভাইয়ের ঘুষিতে বড় ভাই আ’লীগ নেতা তপন কুমার সরকার নিহত হয়েছেন।

রোববার রাতে বাহাগিলী ইউনিয়নের নয়ানখাল চেয়ারম্যান বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে একই রাত থেকে সোমবার বিকাল পর্যন্ত দেশের আরও কয়েকটি উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও দলটির বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ৩৩ জন আহত হয়েছেন। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নিহত তপন কুমার সরকার

নীলফামারী ও কিশোরগঞ্জ : গাড়াগ্রাম ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান বিপ্লব কুমার সরকার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে (মোটরসাইকেল) উপজেলা পরিষদ নির্বাচন করছেন। তারই আপন বড় ভাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি তপন কুমার সরকার নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জাকির হোসেন বাবুলের পক্ষে কাজ করছেন। রোববার সন্ধ্যার পরে নয়ানখাল চেয়ারম্যান বাজারে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে নৌকা প্রতীকের পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন তিনি। খরব পেয়ে বিপ্লব তার সমর্থকদের নিয়ে ওই বাজারে গিয়ে বড় ভাই তপনকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন। উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে তপনকে ঘুষি মারলে তিনি ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারান। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাহাগিলী ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান শাহ দুলু ও গদা গ্রামের ইলিয়াছ মেম্বার জানান, ঘটনার শুরুতে ৪-৫টি মোটরসাইকেলে বিপ্লবের লোকজন এসে তপনসহ তার সঙ্গীদের পথরোধ করে হামলা চালায়। পরে আরও ৮-১০টি মোটরসাইকেলে আরও হামলাকারী তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়। রাতের অন্ধকারে সবাইকে চেনা যায়নি। এ সময় ছোট ভাই বিপ্লবের ঘুষিতেই তপনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় রাত ১১টায় উপজেলা আ’লীগের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন। জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে মেডিকেল মোড়ে সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। সমাবেশে নৌকার প্রার্থী জাকির হোসেন বলেন, নৌকার বিজয় ঠেকাতে দুই বিদ্রোহী প্রার্থী পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেফতার করে দ্রুত আইনের আওতায় না আনলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

নিহত তপন কুমার সরকারের ছোট ছেলে ত্রিনোরাজ রাতুল জানান, তার কাকু এর আগেও তার বাবাকে মারধর করেছিল। লাশ দাহ্য করার পর পারিবারিকভাবে মামলার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এ ব্যাপারে কথা বলতে প্রার্থী বিপ্লব কুমার সরকারকে একাধিকবার কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হারুন অর রশিদ জানান, তপনের লাশ জেলার মর্গে পাঠানো হয়েছে, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সিরাজগঞ্জ : তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। এ কারণে রোববার রাতে বর্ধিত সভা করে তাকে বহিষ্কার করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। এ নিয়ে সোমবার সকাল থেকে তাড়াশ সদরে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। দুপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুজ্জামান তার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে বারোয়ারি বটতলায় তার নিজ বাড়ির সামনে অবস্থান করছিলেন।

এ সময় আওয়ামী লীগ প্রার্থী সঞ্জিত কর্মকারের সমর্থকরা মিছিল নিয়ে এলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপে তাড়াশ উপজেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগ কর্মী সোহাগ হাসান ও ছোটন আহম্মেদসহ ৫ জন আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ব্যাপারে কথা বলতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সঞ্জিত কর্মকার ও বিদ্রোহী প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনিরকে একাধিকবার কল করলেও তারা তা রিসিভ করেননি।

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) : বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আ’লীগ সদস্য রিয়াজ উদ্দিন অভিযোগ করেন, সোমবার দুপুরে আ’লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারফ সাকু ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী যুবলীগ সভাপতি শাকিল আহম্মেদ নওরোজের সমর্থকরা তার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে। হামলাকারীরা তার ৭ সমর্থককে মারধর করে এবং তাদের ব্যবহৃত ১২টি মোটরসাইকেলসহ ভাংচুর করে।

তবে পাল্টা অভিযোগ করে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী শাকিল আহম্মেদ নওরোজ বলেন, আমরা মনোনয়নপত্র দাখিল করে নির্বাচন অফিস থেকে যাওয়ার সময় রিয়াজ উদ্দিনের সমর্থকরা হামলা করে। এতে উপজেলা আ’লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রিপন জমাদ্দার ও যুবলীগ কর্মী রিয়াদ আহত হয়েছেন। আহত রিপনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিমে পাঠানো হয়েছে।

মাগুরা : মহম্মদপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুল মান্নান। একই দলের মনোনয়নবঞ্চিত জাফর সাদিক স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন। রোববার রাতে উভয় প্রার্থীর সমর্থক গঙ্গানন্দপুর গ্রামের আবদুর রাজ্জাক ও মুছানুরের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এ ঘটনার জেরে সোমবার বেলা ১১টায় উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের মধ্যে শরিফুল, আবদুল হালিম, রিয়াজ, পিকুল, রেখা ও মহাজ্জেলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

দিনাজপুর : ফুলবাড়ীতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নৌকা মার্কার পোস্টার পোড়ানোকে কেন্দ্র করে রোববার রাতে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে পৌর যুবলীগের সহ-সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন পলাশ আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মমিনুল ইসলাম নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক মমিনুল পৌর এলাকার সুজাপুর গ্রামের আবু বক্করের ছেলে। এ বিষয়ে সোমবার আওয়ামী লীগ প্রার্থী আতাউর রহমান মিল্টন জানান, দলীয়ভাবে বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে, সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী সুদর্শন পালিত বলেন, ঘটনার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) সুলতান মাহমুদ জানান, পোস্টার পোড়ানোর ঘটনায় মমিনুল ইসলাম নামে একজনকে ওই রাতেই আটক করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

সোনারগাঁ : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় মনোনয়নপত্র জমা দিতে এসে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোশারফ হোসেন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিদ্রোহী) মাহফুজুর রহমান কালামের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৮ জন আহত হয়েছেন। সোমবার বিকালে সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। পরে সোনারগাঁ প্রেস ক্লাবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোশারফ হোসেনের পক্ষে তার ভাতিজা সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত ও বিদ্রোহী প্রার্থী মাহফুজুর রহমান কালাম পৃথকভাবে একে অপরকে দোষারোপ করে সংবাদ সম্মেলন করেন। সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ঘটনাটি অনাকাক্সিক্ষত। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি। সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী অফিসার অঞ্জন কুমার সরকার বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে একটি সামান্য হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। পরে আমি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করেছি।