আ. লীগের মহিলা এমপির মনোনয়ন পেয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতার স্ত্রী!

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বিএনপি নেতার স্ত্রী শিরিনা নাহার লিপি। তার স্বামী কামরুল ইসলাম সজল বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লার আইনজীবী ছিলেন। সজল তার নিজের ফেসবুকে একাধিক স্ট্যাটাসে খালেদা জিয়াকে মা সম্বোধন করেছেন।

গত শুক্রবার গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে সংরক্ষিত আসনে ৪১ জনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। এই তালিকায় লিপির নাম দেখে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ফেসবুকে সমালোচনার ঝড় বইছে।

খুলনা থেকে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন পান শিরিনা নাহার লিপি। কেউ কেউ বলছেন স্বামী বিএনপি করলেও লিপি আওয়ামী লীগের কর্মী। কিন্তু আবার অনেকে প্রশ্ন করেছেন, খুলনাতে হাজার হাজার নারী নেত্রী থাকতে এমন বিতর্কিত কাউকে নমিনেশন দিতে হবে কেন? বিষয়টি নিশ্চয় বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা জানেন না। তার মনোনয়ন বাতিল করারও দাবি করেছেন অনেকে।

খুলনার স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, যুদ্ধাপরাধীকে বাঁচাতে যার স্বামী আদালতে আইনি লড়াই করেছেন, আর তার বউ যদি আওয়ামী লীগের এমপি হন, এর চেয়ে দুর্ভাগ্য আর কিছুই হতে পারে না। তৃণমূলের অনেক ত্যাগী নেতা এখন চরম হতাশ। লিপিকে এমপি বানাতে যারা তদবির করেছেন, সুপারিশ করেছেন, সুষ্টু তদন্ত করে তাদেরও বহিষ্কার করার জোর দাবি জানান তৃণমূলের অনেক ত্যাগী নেতা।

তবে অপর একটি সুত্র জানিয়েছে, শিরিনা নাহার লিপি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শামসুর নাহার হল ছাএলীগের সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ ছাএলীগের তৎকালীন শামিম পান্না কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য ও বর্তমান বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগ এর সহ-সভাপতি এবং তার বাবা মুরহুম এম এ বারী ১৯৭৩ এর সাবেক সংসদ সদস্য ও জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন। শিরিনা নাহার লিপির ছোট ভাই এম এ নাসিম খুলনা মহানগর ছাএলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও খুলনা সরকারী আজমখান কর্মাস কলেজের সাবেক ভি পি। এছাড়া ও তার মামা কামরুজ্জামান টুকু বাগেরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। গোপালগঞ্জের মেয়ে শিরিনা নাহার লিপি আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান হিসেবে নিজেকে গর্ববোধ করেন।