আ্ওয়ামী লীগে গুরুত্বহীন সিনিয়র নেতারা

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ চতুর্থবারের মতো সরকার গঠন করলো। একদিকে যেমন মন্ত্রীত্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছেন ঠিক তেমনি, সংসদের স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার নির্বাচনে কোন ভূমিকা পালন থেকে বঞ্চিত হলেন দলের সিনিয়র নেতারা।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে স্পিকার পদে প্রস্তাব রাখেন তোফায়েল আহমেদ এবং প্রস্তাবকে সমর্থন করেন মোহাম্মদ নাসিম।

২০০৮ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে স্পিকারে পদে প্রস্তাব পেশ করেন সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এবং তাকে সমর্থন করেন শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

তৃতীয় মেয়াদে ২০১৪ সালে স্পিকার পদে প্রস্তাব পেশ করেন শেখ ফজলুল করিম সেলিম এবং তাকে সমর্থন করেন তোফায়েল আহমেদ।

তবে এবার একাদশ সংসদে কোন ভূমিকা রাখেননি কোন সিনিয়র নেতা। স্পিকার পদে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নাম প্রস্তাব করেন ওবায়দুল কাদের। এবং তাকে সমর্থন দেন নবনিযুক্ত চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন। ডেপুটি স্পিকার পদে ড. ফজলে রাব্বী মিয়ার নাম প্রস্তাব করেন হুইপ আতিউর রহমান এবং তাকে সমর্থন করেন আরেকজন হুইপ ইকবালুর রহিম।

আওয়ামী লীগের গত তিন শাসনামলে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার নির্বাচনে দলের সিনিয়র ও হেভিওয়েটরা অবদান রাখলেও এবার তারা গুরুত্বহীনই থেকে গেলেন।