‘আমরা স্তব্ধ, আমরা শোকাহত’

দৈনিক এই আমার দেশ দৈনিক এই আমার দেশ

এই আমার দেশ ডেস্ক : স্বজনের কাঁধে প্রিয়জনের লাশ। কাতর চোখ মর্গে খোঁজে প্রিয়মুখ। পুরান ঢাকার চকবাজারের ভয়াবহ অগ্নিকা-ের এ চিত্রে শোকাচ্ছন্ন রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশ। শোকে স্তব্ধ শোবিজ অঙ্গনের তারকারাও

সুবর্ণা মুস্তাফা : এক রাতের ভেতর ঢাকা পরিণত হলো শোকের শহরে। নিমতলী ট্র্যাজেডির পর এবার চকবাজার। লাশের গন্ধে ভারী হয়ে গেছে পুরনো ঢাকার বাতাস। স্বজন হারানোর আর্তনাদ ছড়িয়ে পড়েছে পুরোদেশে। পুরনো ঢাকার পুনর্বাসন না হলে, রাসায়নিক কারখানা উচ্ছেদ না করলেÑ এমন আরেকটি ঘটনা কেবল সময়ের ব্যাপার।

কুমার বিশ্বজিৎ : চকবাজারের আগুনে যারা মৃত্যুবরণ করেছেন, ঈশ্বর যেন সবাইকে ওপারে শান্তিতে রাখে, এই কামনা করছি। অনাকাক্সিক্ষত কোনো মৃত্যু কখনই কাম্য নয়। সত্যি ভীষণভাবে শোকাহত।

কনকচাঁপা : এভাবে পুড়ে পুড়ে ডুবে ভেসে আর কত প্রাণ! কিছুই ভালো লাগে না। শাকিব খান : ঢাকার চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকা-ের ঘটনায় যারা মারা গেছেন, তাদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করছি। নিহতদের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি পরিবার ও পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা রইল। সেই সঙ্গে আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

নুসরাত ইমরোজ তিশা : চকবাজারের মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় স্তব্ধ পুরোদেশ। সত্তরজন মানুষ পুড়ে ছাই হয়ে গেল! সত্তরজন! এর আগেও একবার এরকম হয়েছিল নিমতলীতে। আমরা কি পারি না পুরান ঢাকার অগ্নি নিরাপত্তা নিয়ে একটু কাজ করতে? এই দুঃসহ ঘটনা ভুলে যাওয়ার আগেই এটা নিয়ে বিশেষজ্ঞরা কাজ শুরু করেন, প্লিজ।

আনজাম মাসুদ : শোকাহত। এই সমস্যার স্থায়ী সমাধান একটাই, বিদ্যমান আইন ও আদালতের নির্দেশনা অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলা। নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।। নিহত-আহতদের পরিবারের প্রতি জানাই গভীর সমবেদনা।

অপু বিশ্বাস : চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিক-ে নিহত সবার আত্মার শান্তি ও আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি। স্বজনদের প্রতি জানাই গভীর সমবেদনা।

হাসিবুর রেজা কল্লোল : শোকের ভাষা। স্তব্ধতা!

আরিফিন শুভ : আমরা স্তব্ধ, আমরা শোকাহত…।

জায়েদ খান : চকবাজার ট্র্যাজেডি! এ এক অন্য ঢাকা! শোকের নগরী…! কত লাশ…! পোড়া লাশ…! স্বজন হারানোর আর্তনাদ! সান্ত¦না দেওয়ার ভাষা আমার জানা নেই।

নিরব : ভাষার দিনে ভাষা হারিয়ে ভাষাহীন আমি…। রওনক হাসান : চকবাজারের সর্বনাশা আগুনে কয়লা ছাই, তোমরা আমাদের, বাবা-মা বোন-ভাই।

মৌসুমী হামিদ : হে আল্লাহ, মানুষদের আগুনের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা কর।

পিন্টু ঘোষ : এতগুলো তাজা প্রাণ পুড়ে নিঃশেষ। শোকের ভাষা হারিয়ে গেছে। তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি।

সাইমন সাদিক : আমরা যদি একটু সচেতন হতাম তা হলে হয়তো শোকের মিছিল এত বড় হতো না। যার যায় একমাত্র সে জানে স্বজন হারানোর যন্ত্রনা কত বেদনার! ভাষার দিনে ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। আল্লাহ তাদের পরিবারকে এই ভয়াবহ শোক সহ্য করার শক্তি দান করুন।

উর্মিলা শ্রাবন্তী কর : চকবাজার অগ্নিকা-ে আহতদের জন্য প্রচুর রক্ত লাগছে। চলুন রক্ত দিয়ে অর্জিত এই ভাষা দিবসে জীবন বাঁচাই। সবার কাছে অনুরোধ করছি।

অর্চিতা স্পর্শিয়া : কালো প্রোফাইল পিকচার দিয়ে, শোকাহত স্ট্যাটাস দিয়ে, গোপনে হাউমাউ করে কেঁদেও এই শোক কাটবে না! আমার শহর.. আমার ঢাকা…আমার পুরান ঢাকা।

শানারেই দেবী শানু : এমন লাশের মিছিল তো চাইনি। জীবন পোড়া গন্ধে ভারী হয়ে আছে একুশ। নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসছে। পোড়া শোকের গন্ধে হয়ত জীবন আবার চলবে নতুন কোনো ছন্দে! আহারে জীবন!

সান আরাফ : চকবাজারের অগ্নিকা-ে নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। আল্লাহ তাদের তুমি স্বর্গবাসী কর, আমিন।

সিনথিয়া ইয়াসমিন : নিমতলী ট্র্যাজেডি, রানা প্লাজা ট্র্যাজেডি, চকবাজার ট্র্যাজেডি। আর কত ট্র্যাজেডি দরকার সচেতন এবং সাবধান হওয়ার জন্য। আল্লাহ এমন মৃত্যু আপনি আমার শত্রুকেও দিয়েন না।

আবু শাহেদ ইমন : প্রাইভেট কার বা সিএনজিতে মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডার ব্যবহার করে হাজার হাজার জীবন্ত বোমা নিয়ে আমরা ঘোরাফেরা করছি। নিচতলায় ক্যামিকেলের গোডাউন ভাড়া দিয়ে পরিজন নিয়ে আরামে ঘুমাচ্ছি দিনের পর দিন। নিমতলী বা চকবাজারের মতো এরকম আরও শত মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শোক প্রকাশ করেছেন অপি করিম, জাকিয়া বারী মম, নিপুণ, শবনম ফারিয়া, অমৃতা খান, বিপাশা কবির, চিরকুট ব্যান্ডের সুমীসহ অনেকে।